লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিক নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে পরিকল্পনা করেই কুৎসা ও অপপ্রচার করা হচ্ছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যিনি প্রথম পরিয়ায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর‌ জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে কেন্দ্র সহ ১৮টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি দিয়েছিলেন। বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর পুরসভায় দাঁড়িয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের নেত্রী দোলা সেন এই দাবি করেন। বৃহস্পতিবার দোলা সেনের হাতে করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলের জন্য কুড়ি লক্ষ পাঁচ হাজার টাকার চেক তুলে দেওয়া হয় তৃণমূল কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন অনুমোদিত ডিএসপি ঠিকা শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে। শ্রমিক নেতা প্রভাত চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে অর্থ সংগ্রহ করে দোলা সেনের হাতে তুলে দেওয়া হয়। সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানে ছিলেন দুর্গাপুরের মেয়র দিলীপ অগস্থী, তৃণমূল কংগ্রেসের পশ্চিম বর্ধমান জেলার সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারি এবং শ্রমিক নেতা প্রভাত চট্টোপাধ্যায়।

এদিন দুর্গাপুর পুরসভা কার্যালয়ে দাঁড়িয়ে পরিয়ায়ী শ্রমিক নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ক্রমাগত অপপ্রচারের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের নেত্রী দোলা সেন। তিনি বলেন, ‘পরিযায়ী শ্রমিক নিয়ে লকডাউন শুরু হতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যিনি পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের খাওয়ার ও থাকার ব্যবস্থা সহ রাজ্যে ফেরানোর জন্য কেন্দ্র সহ ১৮টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের তিনি চিঠি দেন। বিভিন্ন রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে আমাদের রাজ্যের প্রশাসন কথা বলেছেন এবং পরিযায়ী শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরানোর ব্যবস্থা মুখ্যমন্ত্রী করেছেন। একইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য খাওয়া ও থাকার ব্যবস্থা সহ চিকিৎসার সুবন্দোবস্ত করেছেন। এবং বিভিন্ন রাজ্যে শ্রমিকদের ফেরানোর জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করেছেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের এই নিয়ে কোনো ক্ষোভ নেই। তাঁরা সন্তুষ্ট কিন্তু এক শ্রেণীর মানুষ ক্রমাগত মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে চলেছেন।’

দোলা সেন বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যিনি ভিন রাজ্যে আটকে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য ‘স্নেহের পরশ’ প্রকল্প ঘোষণা করেছেন যার মাধ্যমে ভিন রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য টাকা যাচ্ছে। তাছাড়া এরাজ্যে ফিরে আসা শ্রমিকদের জন্য ১০০ দিনের প্রকল্পে কাজ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন মাটির সৃষ্টি প্রকল্পে। অথচ মুখ্যমন্ত্রীর মানবিক রূপ দেখে পরিকল্পনা করেই বঞ্চনার গল্প ফেঁদে মুখ্যমন্ত্রীর নামে অপপ্রচার ও বদনাম করার চেষ্টা করছেন একশ্রেণীর মানুষ।’

Like Us On Facebook