কৌস্তভ সেন

সর্বভারতীয় জয়েন্ট এন্ট্রান্স মেন বা জেইই মেন(এপ্রিল) পরীক্ষায় রাজ্যে প্রথম হয়েছিলেন আসানসোলের বাসিন্দা তথা দুর্গাপুরের হেমশীলা মডেল স্কুলের ছাত্র কৌস্তভ সেন। শুক্রবার জেইই অ্যাডভান্সড পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। কৌস্তভ সেন জেইই অ্যাডভান্সড বা আইআইটি প্রবেশিকা পরীক্ষাতেও সর্বভারতীয় স্তরে ৪২ র‌্যাঙ্ক করে ফের রাজ্যে প্রথম স্থান অধিকার করলেন। পাশাপাশি দুর্গাপুরের ছেলে হেমশীলা মডেল স্কুলের আর এক ছাত্র সোহম মিস্ত্রী আইআইটি প্রবেশিকা পরীক্ষায় সর্বভারতীয় স্তরে ৪৮ র‌্যাঙ্ক করেছেন। কৌস্তভ এবং সোহম হেমশীলা মডেল স্কুলে পড়াশোনা করার পাশাপাশি ফিটজী (FIIT JEE) দুর্গাপুর সেন্টার থেকে কোচিং নিয়েছেন।

জানা গেছে, কৌস্তভ সেনের বাড়ি আসানসোলে। পড়াশোনা ও কোচিংয়ের সুবিধার জন্য কৌস্তভরা দুর্গাপুরেই থাকতেন। বাবা অরূপ কুমার সেন চিত্তরঞ্জন রেল কারখানার কর্মী। মা কুলটি গার্লস স্কুলের শিক্ষিকা। শুক্রবার আইআইটি প্রবেশিকার ফল প্রকাশ হওয়ার পর উচ্ছ্বসিত কৌস্তভ বলেন, ‘প্রথম ১০০ জনের মধ্যে আমার নাম থাকবে এটা আমার আশা ছিল, কিন্তু এত ভাল ফল করব আশা করিনি।’ কৌস্তভ তাঁর এই কৃতিত্ব অর্জনের পিছনে তাঁর কোচিং সেন্টার ফিটজী’র শিক্ষকদের যেমন অবদান রয়েছে তেমনই বাবা-মা এবং হেমশীলা মডেল স্কুলের শিক্ষকদেরও সমান অবদান রয়েছে বলে জানান।

জানা গেছে, কৌস্তভ ছোট থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত চিত্তরঞ্জনের সেন্ট জোসেফ কনভেন্ট স্কুলে পড়াশোনা করেন। পরে পড়াশোনার জন্য দুর্গাপুরে চলে আসেন। কৌস্তভ পড়াশোনার পাশাপাশি ফুটবল খেলা, ছবি আঁকা ও গিটার বাজাতে পছন্দ করেন। কৌস্তভ মুম্বাই আইআইটিতে পড়াশোনা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। জেইই মেন এবং জেইই অ্যাডভান্সড পরীক্ষায় রাজ্যে প্রথম স্থান লাভ করায় কৌস্তভের স্কুলের শিক্ষিক-শিক্ষিকা থেকে পড়শিরা যেমন খুশি, তেমনই কৌস্তভের কোচিং সেন্টার দুর্গাপুরের ফিটজীতেও উৎসবের আমেজ। কৌস্তভের সঙ্গে সঙ্গে হেমশীলা মডেল স্কুল এবং ফিটজীর আর এক ছাত্র দুর্গাপুরের ছেলে সোহম মিস্ত্রী আইআইটি প্রবেশিকা পরীক্ষায় ৪৮ র‌্যাঙ্ক করায় কোচিং সেন্টারে পক্ষ থেকে দুই কৃতী ছাত্রকেই সংবর্ধনা জানানো হয় বলে জানা গেছে।

বর্ধমান ডট কম-এর খবর নিয়মিত আপনার ফেসবুকে দেখতে চান?

সোহম মিস্ত্রী

অভিভাবকদের সঙ্গে সোহম ও কৌস্তভ

ফিটজী’র শিক্ষকদের সঙ্গে সোহম ও কৌস্তভ


ছবি: সংগৃহীত

Like Us On Facebook