দশ কিলোমিটার রাস্তা যেতে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া চাইলো কুড়ি হাজার টাকা! কিছু পথ যাওয়ার পর বিকল অ্যাম্বুলেন্স। গাড়ি বিকলের পর ভেন্টিলেশন সাপোর্টও বন্ধ হয়ে যাওয়ায় রাস্তাতেই মৃত্যু হল রোগীর। এমনটাই অভিযোগ রোগীর আত্মীয়দের। অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর উত্তেজিত জনতার। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমান শহরের পুলিশ লাইন এলাকায়। মৃত ব্যক্তির নাম স্বপন কুমার দাস(৫৫)। বাড়ি সাতগেছিয়ায়।

জানা গেছে, ১ অক্টোবর শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি বর্ধমানের উল্লাস মোড়ের কাছে একটি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন। এরপর মঙ্গলবার রোগীর আত্মীয়রা বর্ধমানের নবাবহাটের একটি নার্সিংহোমে রোগীকে স্থানান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেন। ডাক্তারের পরামর্শ মেনে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট থাকা অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া নেওয়া হয়। বামচাঁদাইপুরের বেসরকারি হাসপাতাল সে জন্য কুড়ি হাজার টাকা ভাড়া দাবি করে বলে অভিযোগ। কিছুটা পথ যাওয়ার পরই পুলিশ লাইনের কাছে বিকল হয়ে যায় অ্যাম্বুলেন্স। কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয় ৫৫ বছর বয়সী ওই রোগীর। অ্যাম্বুলেন্সের ভাড়া শুনেই উত্তেজিত জনতা তাতে ভাঙচুর চালায়। বর্ধমান থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ। যদিও বেসরকারি নার্সিংহোম কতৃপক্ষ জানিয়েছে ৫৫০০ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়েছে। যান্ত্রিক কারণে অ্যাম্বুলেন্স বিকল হয়ে গেলেও ভেন্টিলেশন চালু ছিল। অ্যাম্বুলেন্স বিকল হয়ে যাওয়ার খবর পেয়ে চিকিৎসক সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌছান।

 

Like Us On Facebook