ভুল ইঞ্জেকশনে রোগী মৃত্যুর অভিযোগে আসানসোলের কুলটি থানার নিয়ামতপুর ফাঁড়ির অন্তর্গত রাধানগর রোডের উপর এক চিকিৎসকের চেম্বার ভাঙচুর করলেন রোগীর পরিজনেরা। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে ক্ষতিপূরণ ও চিকিৎসককে গ্রেফতারের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় মানুষ সহ রোগীর পরিজনেরা। পুলিশ চিকিৎসককে আটক করেছে।

রোগীর পরিবাবরের অভিযোগ, ইসিএল কর্মী পশুপতি সিং (৪৫) সোমবার বাড়িতে পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পান। এরপর তাঁকে ওই ডাক্তারের চেম্বারে চিকিৎসার জন্য আনা হয়। চিকিৎসক পশুপতিবাবুর মাথায় চারটি সেলাই করেন এবং টেটভ্যাক ইঞ্জেকশন দেন। এর কিছুক্ষণ পরে চিকিৎসক তাঁকে আরও একটি ইঞ্জেকশন দেন। রোগীর পরিজনেদের অভিযোগ, দ্বিতীয় ইঞ্জেকশনটি দেওয়ার পরই পশুপতিবাবুর সাড়া শরীর নীল হতে থাকে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সাঁকতোড়িয়ার ইসিএল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়।

বুধবার সকালে মৃতের পরিবারের লোকজন চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে রাধানগর রোডের উপর অভিযুক্ত চিকিৎসকের চেম্বারে ভাঙচুর চালান এবং চিকিৎসককে গ্রেফতারের দাবিতে লিথুরিয়া রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। পুলিশ উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেন মৃতের পরিজনেরা। অভিযুক্ত চিকিৎসককে আটক করে থানায় নিয়ে যায় নিয়ামতপুর ফাঁড়ির পুলিশ।

Like Us On Facebook