ইতিহাসের শহর বর্ধমান, যার মূল ভিত্তি হল সম্প্রীতি ও তার নিজস্ব সংস্কৃতি। একাধারে তার মধ্যে যেমন গ্রামীণ মাটির গন্ধ বিরাজমান অন্যদিকে লক্ষ্মীর ডালি নিয়ে শিল্পের ছোঁয়া। কিছু বুঝে উঠার আগেই কখন যেন রাঙামাটির পথ এসে মিলায় শহুরে কংক্রীটের সড়কে। মিশে যায় গ্রাম আর শহর। মিশে যায় মানুষ। মিশে যায় সংস্কৃতি, কৃষ্টি। ধর্মও যেখানে বাঁধ মানে না। আর এই স্রোতকেই এগিয়ে নিয়ে যেতে শুরু হয় বিভিন্ন উৎসব। এই রকমই একটি অন্যতম বর্ধমানবাসীর প্রাণের উৎসব হল ‘পৌষালী’। যার এ বছর দ্বিতীয় বর্ষ। শুরু থেকেই যা বর্ধমানবাসীর মন কেড়ে নিয়েছে। বর্ধমানবাসীর সেই ভালোবাসা ও আবেগকে সম্মান দিতে তৎপর উৎসব কমিটিও। দ্বিতীয় বর্ষের পৌষালী উৎসবকে আরও ব্যপকভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে শুক্রবার উৎসব কমিটি তাঁদের প্রথম বৈঠক করল বিধান সংঘ ক্লাবে। উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলার মহঃ আলি, উৎসব কমিটির অন্যতম সদস্য তথা বিশিষ্ট সমাজসেবী নুরুল আলম (সাহেব) সহ অনান্য বিশিষ্টজন ও এলাকার একাধিক ক্লাব ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা। নুরুল আলম জানিয়েছেন এই বছর ‘পৌষালী’ বাজেপ্রতাপপুর মিলন উৎসব শুরু হবে বিধান সংঘ মাঠে ১২ জানুয়ারি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে। চলবে ১৯ জানুয়ারী পর্যন্ত। বিভিন্ন ধরণের হস্তশিল্প স্টল, ডিজনীল্যান্ড, ইলেকট্রিক নাগরদোলা যেমন থাকবে তেমনই থাকবে প্রত্যেকদিনই বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। যেখানে এলাকার সম্ভাবনাময় শিল্পীরা যেমন অংশগ্রহণ করবেন তেমনি থাকবেন কলকাতা ও রাজ্যের শিল্পীরাও।

Like Us On Facebook