৩০ টাকার লটারি টিকিট কেটে বাড়ি ফিরেছিলেন গুসকরার এক রিক্সাওয়ালা। আর তাতেই রাতারাতি তিনি ৫০ লক্ষ টাকার মালিক হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গুসকরার পুরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার মুচিপাড়ায়। এরপরই লটারির পুরস্কার পাওয়া গৌড় দাসকে নিয়ে রীতিমত গুঞ্জন চলছে এলাকায়। তাঁকে দেখতে অনেকে ভিড় জমাচ্ছেন তাঁর বাড়িতে। রবিবার লটারির ফলাফল ঘোষণার পর সোমবার গৌড়বাবু তাঁর টিকিট গুসকরারই একটি ব্যঙ্কের শাখায় জমা করেছেন। গৌড় দাসের বাড়িতে রয়েছেন বিধবা মা, স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে। রিক্সা চালিয়ে সংসার ঠিকমত চলে না। রিক্সা চালানোর পাশাপাশি মাঝেমধ্যে দিনমজুরিও করতে যেতে হয়। দিনমজুরের কাজে যুক্ত মা তুলসীদেবী ও স্ত্রী প্রতিমা দাস। সন্তানরা সকলেই প্রাথমিক স্কুল পড়ুয়া।

গৌড়বাবু জানিয়েছেন, তিনি নাগাল্যান্ড সরকারের ‘৫ সেম’ টিকিটটি কেটেছিলেন রবিবার সকালে। রবিবার তাঁদের ইউনিয়নের কয়েকজন মিলে পিকনিক করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বৃষ্টির কারণে পিকনিক বাতিল হয়। যখন বাড়ি ফিরছিলেন তখন তাঁকে একপ্রকার জোরকরেই এক টিকিট বিক্রেতা ওই টিকিটটি দিয়েছিলেন। গৌড় দাস বলেন, ‘তখন আমার কাছে মাত্র ৭০ টাকা পড়ে রয়েছে। তাই টিকিট নিতে চাইনি। খুব জোরাজুরি করায় টিকিটটি নিই।’ সকালের দিকে টিকিটটি কেনার পর রবিবার দুপুর নাগাদ গৌড় দাস পাড়ার কাছে একটি কাউন্টারে টিকিটটি মেলাতে গিয়ে চমকে যান। লটারির রেজাল্ট শিটে দূর থেকেই নজরে আসে তাঁর প্রথম পুরস্কার পড়েছে। ৫০ লক্ষ টাকা। ভালো বাড়ি ও ছেলেমেয়েদের ভালো স্কুলে ভর্তি করানোর পাশাপাশি গৌড় দাস রিক্সা ছেড়ে এবার একটা টোটো কেনার পরিকল্পনার কথা জনান।

Like Us On Facebook