পূর্ব বর্ধমান জেলায় বাড়ছে ডেঙ্গু এবং ম্যালেরিয়ার প্রকোপ। চলতি বছরে এখনও পর্যন্ত মোট ১২জন ডেঙ্গুতে এবং ১৯ জন ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর তাই রীতিমত কোমড় বেঁধে জেলার ২১৫টি গ্রাম পঞ্চায়েত এবং ২৩টি পঞ্চায়েত সমিতিকে কড়া বার্তা দিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া।

মঙ্গলবার বর্ধমানের সংস্কৃতি অ্যানেক্সে জনস্বাস্থ্য দফতরের স্থায়ী সমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এই বৈঠক থেকেই গোটা জেলায় সমস্ত গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতিকে ২টি করে স্প্রে মেশিন দেওয়া হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন দফতরের জন্যও ২টি করে স্প্রে মেশিন দেওয়া হয়। সভাধিপতি জানিয়েছেন, পতঙ্গবাহিত রোগ নির্মূলের পাশাপাশি করোনার তৃতীয় ঢেউ রুখতে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় সমস্ত গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতিকে মাঠে নেমে পড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেহেতু সামনেই দুর্গাপুজো। তাই পুজোর আগে এবং পুজোর সময় প্রতিটি এলাকায় স্প্রে করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতিকে কোনোরকম গাফিলতি না করে রোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, এদিন জেলায় মোট ৪৭৬টি স্প্রে মেশিন প্রদান করা হয়েছে।

এদিকে, এদিনই জেলা পরিষদের অর্থ স্থায়ী সমিতির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে একাধিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সভাধিপতি জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প ২০২৪ সালের মধ্যে সমস্ত বাড়ি বাড়ি বিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দেওয়ার কাজ পূর্ব বর্ধমান জেলায় জোরকদমে চলছে। তিনি জানিয়েছেন, জল স্বপ্ন এই প্রকল্পে গোটা জেলায় ১৭৮টি প্রকল্প চালু হয়েছে। ১৩৬টি প্রকল্পের আবেদন রাজ্যে পাঠানো হয়েছে। ২২টি প্রকল্পের জমি নেওয়ার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, জল স্বপ্ন প্রকল্পে গোটা রাজ্যে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রথম স্থান অধিকার করেছে। এদিন এই বৈঠকে হাজির ছিলেন সভাধিপতি ছাড়াও জেলা পরিষদের সহকারী সভাধিপতি দেবু টুডু, মেণ্টর উজ্জ্বল প্রামাণিক, কো-মেণ্টর আবুল হাসান, জনস্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ বাগবুল ইসলাম সহ জেলা পরিষদের সমস্ত কর্মাধ্যক্ষরাও।

Like Us On Facebook