টাকা ছিনতাইয়ে বাধা দিতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হলেন পঞ্জাব ন‍্যাশনাল ব‍্যাঙ্কের এক ব্যাঙ্ক মিত্র। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুর দুটো কুড়ি নাগাদ অণ্ডালের জামবাদ বেনিয়াড়িতে। স্থানীয় যুবক সুপ্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায় ( ৩২) পঞ্জাব ন‍্যাশনাল ব‍্যাঙ্কের কাজোড়া শাখার বেনিয়াড়ির ব্যাঙ্ক মিত্র ছিলেন। দৈনন্দিন প্রায় পঞ্চাশ হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেন হতো সুপ্রকাশের হাত দিয়ে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সুপ্রকাশ ব‍্যাঙ্কের কালেকশন নিয়ে কাজোড়া যাওয়ার সময় হঠাৎ করে দুই অজ্ঞাত পরিচয় যুবক বাইকে করে এসে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে সুপ্রকাশের ব‍্যাগ ভর্তি টাকা ছিনিয়ে নেয়। প্রত‍্যক্ষদর্শীরা বলেন, ‘ছিনিয়ে নেওয়া টাকা সুপ্রকাশ দুষ্কৃতীদের কাছ থেকে উদ্ধারের চেষ্টা করতে চিৎকার করলে দুষ্কৃতীরা সুপ্রকাশকে গুলি করে চম্পট দেয়। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন সুপ্রকাশ।’

স্থানীয় মানুষ সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের ডিসিপি (পূর্ব) অভিষেক মোদী, এসিপি বিমল কুমার মন্ডল সহ পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছান। সুপ্রকাশবাবুর বাড়িতেও খবর দেন স্থানীয় মানুষ ও পুলিশ আধিকারিকরা। এদিকে প্রথমে সুপ্রকাশকে রানিগঞ্জের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর তাঁর মৃতদেহ দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক তথা আসানসোলের মেয়র জীতেন্দ্র তেওয়ারি। এদিকে সুপ্রকাশবাবুর অকাল মৃত্যুতে গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। সুপ্রকাশের ভাই দেবপ্রকাশ বলেন, ‘দাদার কোন শত্রু ছিল না। স্থানীয় কোন দুষ্কৃতী পরিকল্পনা করেই ছিনতাইয়ের কাজ করেছে। দাদা বাধা দিতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হলো।’ পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে।


Like Us On Facebook