বাড়ি তৈরির জন্য টাকার দাবি এবং তা আদায়ে মানসিক চাপে একব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল বর্ধমান শহরের ৬ নং ওয়ার্ডের লোকো ঘোষপাড়া এলাকায়। অভিযোগের তীর তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলার সৈয়দ মহম্মদ সেলিম ও তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ অস্বীকার সৈয়দ মহম্মদ সেলিমের। মৃত ব্যক্তির নাম কিশোর প্রসাদ পাশওয়ান (৬৫)। তিনি প্রাক্তন রেল কর্মী।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, লোকো এলাকায় একটি বাড়ি তৈরির জন্য অভিযুক্ত কাউন্সিলার সৈয়দ মহম্মদ সেলিমকে কয়েকটি পর্যায়ে মোট ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। সেই নিয়ে অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ নবান্ন পর্যন্ত পৌঁছয়। গত সোমবার পুনরায় টাকা দাবি করে কিশোর পাশয়ানকে পার্টী অফিসে ডেকে পাঠান প্রাক্তন কাউন্সিলার বলে অভিযোগ। সেই টাকা দিতে না পারলে বাংলা ছেড়ে চলে যেতেও বলা হয় বলে অভিযোগ। এরপরেই বাড়ি ফিরে অসুস্থবোধ করলে কিশোর প্রসাদ পাশওয়ানকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অভিযোগ, মানসিক চাপ সহ্য করতে না পেরেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এরপরেই টাকা ফেরতের ও অভিযুক্ত প্রাক্তন কাউন্সিলারের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে বর্ধমান থানা ঘেরাও করা হয় মৃতের পরিবার ও বিজেপির তরফে। পরে পুলিশি আশ্বাসে ওঠে অবরোধ। পুলিশ তদন্তের স্বার্থে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সৈয়দ মহম্মদ সেলিম।

বর্ধমান ডট কম-এর খবর নিয়মিত আপনার ফেসবুকে দেখতে চান?

Like Us On Facebook