বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এলাকার যানজট পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে সোমবার হাসপাতাল এলাকা পরিদর্শনে যান জেলা পুলিশ সুপার। পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ডিএসপি (ট্রাফিক) প্রদীপ মণ্ডল, ডিএসপি (হেড কোয়ার্টার) চন্দন ঘোষ প্রমুখরা বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহ সমগ্র যানযট পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেন। পূর্বতন পুলিশ সুপার কুণাল আগরওয়ালের সময়ে হাসপাতাল সংলগ্ন রাস্তাগুলিকে ওয়ান ওয়ে করার প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছিল। সেই নিয়ম যানবাহন চালকরা ঠিকঠাক মানছেন কিনা তাও তিনি খতিয়ে দেখেন। খতিয়ে দেখেন পার্কিং, রাস্তার দুপাশের অ্যাম্বুলেন্স সহ একাধিক গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকার মতো ঘটনাও। জেলা পুলিশ সুপার হাসপাতালের যানজট মোকাবিলায় বেশ কয়েকটি নির্দেশও দেন।

জেলা পুলিশ সুপার এদিন জানিয়েছেন, হাসপাতালের মোট ২৯২ জন নিরাপত্তারক্ষীর মধ্যে ৮৪ জন রয়েছেন কমাণ্ডার গ্রুপ নামে একটি ঠিকাদার সংস্থার অধীনে। হাসপাতালের অভ্যন্তরে চিকিৎসকদের সঙ্গে রোগীদের প্রায়শই সংঘর্ষ, মারপিটের ঘটনায় এবার থেকে এই ৮৪জন নিরাপত্তারক্ষীর হাতেই বিশেষ দায়িত্ব দেবার কথা জানিয়েছেন তিনি। এব্যাপারে দুদফায় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ওই ৮৪জন নিরাপত্তারক্ষীকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেবার কথা ঘোষণা করেছেন তিনি।

অন্যদিকে, হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশকে তাদের সঙ্গে সহযোগিতা করে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন। একইসঙ্গে হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশকে হাসপাতালের বাইরের শ্যামসায়রের রাস্তায় যানজট মোকাবিলায় কড়া পদক্ষেপ নেবার নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, হাসপাতালের লাগোয়া শ্যামসায়রের রাস্তায় কোনরকম পার্কিং চলবে না। মোটর সাইকেলও পার্কিং করা যাবেনা। পার্কিং করলেই পুলিশ তা বাজেয়াপ্ত করবে।

Like Us On Facebook