পূর্ব বর্ধমানের বিভিন্ন জায়গায় গত কয়েকদিনে সাপের কামড়ে এক ছাত্রী সহ চার জনের মৃত্যু হয়েছে। অতিবৃষ্টি ও ডিভিসির ছাড়া জলে জেলার বিভিন্ন এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। জমা জল নামতেই সাপের উপদ্রব বেড়েছে গ্রামীণ এলাকায়।

কাটোয়ার কড়ুই গ্রামে বৃষ্টি সাহা নামের এক দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীর সর্পাঘাতে মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ভোরে বাড়িতে ঘুমন্ত অবস্থায় তাকে সাপে কামড়ায়। পরিজনেরা তাকে কাটোয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বর্ধমান হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানে রাতে মারা যায় বৃষ্টি।

গলসি থানার জাঁহাপুরে সাপের কামড়ে মৃত্যু হয় অজয় বাগ (৩০) নামের এক খেতমজুরের। শনিবার রাতে বিছানায় ঘুমন্ত অবস্থায় তাঁকে সাপে কামড়ায়। বাড়ির লোকজন তাঁকে বর্ধমান হাসপাতালে ভর্তি করেন। রবিবার সকালে তিনি মারা যান।

বর্ধমান থানর পিলখুড়ি গ্রামের কার্তিক মাঝি (৪০) নামের এক খেতমজুর রাতে বাড়ি ফেরার সময় রাস্তায় সাপের ছোবল খান। বর্ধমান হাসপাতালে ভর্তি করা হলে রবিবার তিনি মারা যান।

শুক্রবার রাতে মাধবডিহি থানার উচালনে চন্দন কুমার (১৯) নামের এক রাইস মিল কর্মীকে সাপে কামড়ায়। তাঁকে বর্ধমান হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার তিনি মারা যান।

Like Us On Facebook