দুর্গাপুরের পূর্ব কেন্দ্রের প্রয়াত বিধায়ক নিখিল বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বিধায়ক তহবিল থেকে দুর্গাপুরের গ্রামীণ এলাকা ও আর্থিকভাবে দুর্বল মানুষদের চিকিৎসার জন্য দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে একটি ডায়ালিসিস মেশিন দিয়েছিলেন। কেবলমাত্র টেকনিশিয়ানের অভাবে ডায়ালিসিস মেশিনটি বন্ধ হয়ে পড়ে আছে বলে অভিযোগ।

ডায়ালিসিস মেশিনটি অপারেট করতে চুক্তি ভিত্তিক অস্থায়ী কর্মী নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাঁরা সঠিক সময়ে পারিশ্রমিক না পেয়ে গত ছয় মাস ধরে কাজ বন্ধ করে দেওয়ায় ডায়ালিসিস মেশিনটি অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা নতুন কর্মী নিয়োগের জন্য হাসপাতালে পরিদর্শন ও প্রশাসনিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করলেও এখনও পর্যন্ত ডায়ালিসিস মেশিনটির জন্য অপরেটর নিয়োগ না হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ডায়ালিসিসের রোগী ও রোগীর পরিজনেরা। ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডাঃ দেবব্রত দাস। ফলে আর্থিকভাবে দুর্বল মানুষরা বেশি খরচে বেসরকারি হাসপাতালে ডায়ালিসিস করাতে বাধ্য হচ্ছেন। রোগীদের আত্মীয়দের অভিযোগ, দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে যেখানে ৭৮০ টাকা দিয়ে ডায়ালিসিস করানো যেত বা বিপিএল তালিকাভুক্তরা বিপিএল কার্ড দেখিয়ে বিনামূল্যে ডায়ালিসিসের সুযোগ পেতেন সেখানে বেসরকারি হাসপাতালে গিয়ে প্রায় ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা দিয়ে ডায়ালিসিস করাতে হচ্ছে। ফলে যে সব রোগীদের ডায়ালিসিসের প্রয়োজন তাঁরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। রোগীদের আত্মীয়-পরিজনরা এই নিয়ে ক্ষুব্ধ।

Like Us On Facebook