খুনের মামলায় যাবজ্জীবন সাজা ঘোষণা করল কালনা আদালত। দীপা সর্দার (বৈরাগ্য) নামে এক গৃহবধূ খুন হন। সেই খুনের মামলায় পূর্বস্থলী থানা এলাকার বেলেরহাটের বাসিন্দা কুশ দাসকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের পাশাপাশি ৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে অতিরিক্ত ৬ মাস কারাবাসের নির্দেশ দেন কালনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা আদালতের বিচারক তপন কুমার মন্ডল।

কালনা আদালতের সরকারি আইনজীবী মলয় পাঁজা জানান, দীপা সর্দার ( বৈরাগ্য) বিবাহিত ছিলেন। তাঁর শ্বশুরবাড়ি নদীয়া জেলার নবদ্বীপ এলাকায়। দীপার স্বামী কাজের সূত্রে বাইরে থাকার কারণে দীপা পূর্বস্থলী থানা এলাকার বাপের বাড়িতে থাকতেন। বাপের বাড়িতে থাকাকালীন দীপা সর্দারের সঙ্গে কুশ দাসের পরিচয় হয়। দীপার বাপের বাড়িতে কুশের নিয়মিত যাতায়াত ছিল। পরে দীপার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দীপা বিয়ের জন্য কুশকে চাপ দিতে থাকে। এরপরই দীপার সাথে কুশের ঝামেলা শুরু হয়। তারপর ২০১৬ সালের ২১ ডিসম্বর দীপাকে তাঁর বাড়িতে কুশ শ্বাসরোধ করে খুন করে বলে অভিযোগ ওঠে। ঘটনার পরদিন কুশ দাসের বিরুদ্ধে পূর্বস্থলী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন দীপার মা। পুলিশ খুনের মামলা রুজু করে। সেই খুনের মামলায় শুক্রবার কুশ দাসকে যাবজ্জীবন সাজা ঘোষণা করেন বিচারক।

Like Us On Facebook