দীর্ঘদিন ধরে ভূগোলের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলের দশম, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রীদের কুপ্রস্তাব এবং অশ্লীল ইঙ্গিতের অভিযোগ তুলে শনিবার ব্যাপক বিক্ষোভ দেখালো ছাত্রছাত্রীরা। অভিযুক্ত শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়ে এদিন বর্ধমান-কাটোয়া রোড অবরোধও করে ছাত্রছাত্রীরা। স্কুলের ছাত্রছাত্রী এবং অভিভাবকরা অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবিতে এদিন স্কুলের গেটে তালাও ঝুলিয়ে দেয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষকের আশ্বাস পাওয়ার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়। এই ঘটনায় ওই অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে দেওয়ানদিঘী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ছাত্রীরা।

এদিন বর্ধমান ১নং ব্লকের ক্ষেতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রীরা অভিযোগ করেছেন, বেশ কিছুদিন ধরেই স্কুলের এক ভূগোলের শিক্ষক নানাভাবে তাদের ভাল নম্বর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে কুপ্রস্তাব দিচ্ছেন। এমনকি ক্লাসে এসে তিনি অশ্লীল ইঙ্গিতও করছেন কয়েকজন ছাত্রীকে। এব্যাপারে প্রতিবাদ করায় ওই শিক্ষক পরীক্ষায় কম নম্বর দেওয়ার হুমকি দেন বলে অভিযোগ।

এদিকে লাগাতার এই ঘটনা ঘটতে থাকায় ছাত্রীরা তাঁদের অভিভাবকদের সমস্ত ঘটনা খুলে বলে। অভিভাবকরা স্কুলের প্রধান শিক্ষক হৃতিক যশকে সমস্ত ঘটনা জানিয়ে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আবেদনও জানান। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় শনিবার অভিভাবক ও ছাত্রছাত্রীরা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। একইসঙ্গে স্কুলের গেটে তালাও ঝুলিয়ে দেন। পরে খবর পেয়ে দেওয়ানদিঘী থানা থেকে পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়। এরপরই দশম শ্রেণির এক ছাত্রী ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

এদিন এই ঘটনার বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক জানিয়েছেন, তাঁরা অভিযোগ পেয়েছেন। গোটা বিষয়টি স্কুল পরিদর্শককে জানানো হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই অভিযুক্ত শিক্ষক স্কুলে আসছেন না বলে তিনি জানিয়েছেন। অপরদিকে, এই ঘটনার বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। তাঁর পরিবারের লোকজন এব্যাপারে কিছু বলতে চাননি।


Like Us On Facebook