মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের মেমারির রাধাকান্তপুরে পথ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠার ঘটনায় ৩৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁদের বুধবার বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। ধৃতদের বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর, অশান্তি সৃষ্টি করার অভিযোগ আনা হয়েছে বেশ কয়েকটি ধারায়।

গতকাল প্রায় আট ঘন্টা অবরোধ চলার পর অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশ ও আধিকারিকদের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ে উত্তেজিত জনতা। দুটি পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগানো হয়। জখম হন কয়েকজন পুলিশকর্মী। এরপর পুলিশ অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করে অবরোধ তোলে। এদিকে মঙ্গলবারের ঘটনার পর রাধাকান্তপুর উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বুধবার স্কুল বন্ধের নোটিশ দেওয়ায় এদিন বন্ধ থাকে স্কুল।

উল্লেখ্য, গতকাল সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ ধানের তুষ বোঝাই একটি ট্রাক দ্রুত গতিতে সাতগেছিয়া থেকে মেমারির দিকে আসছিল। সেই সময় রাধাকান্তপুর হাইস্কুলের কয়েকজন পড়ুয়া সাইকেলে স্কুল যাচ্ছিল। রাধাকান্তপুর মোড়ে দ্রুতগতির ট্রাকটি এক ছাত্রীকে ধাক্কা মেরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেলে আরও দুই পড়ুয়া ট্রাকের নীচে চাপা পড়ে যায়। স্থানীয় মানুষজন তাদের উদ্ধার করে মেমারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসকরা নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন এবং গুরুতর জখম অপর পড়ুয়াদের বর্ধমানের অনাময় হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পথ দুর্ঘটনার পর ক্ষিপ্ত মানুষজন ও রাধাকান্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা মেমারি-সাতগেছিয়া রোড অবরোধ করে। অবরোধকারীদের সঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে আটকে পড়েন বর্ধমান দক্ষিণ মহকুমাশাসক অনির্বাণ কোলে। তাঁকেও হেনস্তা করা হয় বলে অভিযোগ। কয়েকজন পুলিশকর্মীও হটের আঘাতে জখম হন। এই ঘটনায় ৩৯ জনকে রাতে আটক করে মেমারি থানার পুলিশ।

Like Us On Facebook